» সাভার-আশুলিয়ায় যুবলীগ নেতাসহ ৭ জনকে কুপিয়ে জখম

Published: ০৯. জানু. ২০১৮ | মঙ্গলবার

পৃথক ঘটনায় সাভার ও আশুলিয়ার যুবলীগ নেতাসহ ৭ জনকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার বিকালে আশুলিয়ার বেলতলা, খেজুরটেক ও সাভার পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের জামসিং এলাকায় কাউন্সিলর মিনহাজ উদ্দিন মোল্ল্যার স্থানীয় অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায় বিকেলে পূর্ব শক্রুতার জের ধরে জামসিং এলাকায় সাভার পৌর সভার ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিনহাজ উদ্দিন মোল্লার সহযোগী আবু বক্কর সিদ্দিককে ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা করেন জামসিং টেউটি এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী কাদের বাহিনীর সহযোগী সন্ত্রাসী হোসেন মিয়া। এসময় সে আবু বক্করকে এলোপাথারী ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে এলাকাবাসী সন্ত্রাসীকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। পরে আহতকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এদিকে ওই সন্ত্রাসী জানিয়েছে স্থানীয় কাউন্সিলর মিনহাজ উদ্দিন মোল্লাকে হত্যা করাই ছিলো তার মূল উদ্দেশ্য। মিনহাজকে না পেয়ে তার সহযোগীকে তিনি ছুরিকাঘাত করেছেন।

অন্যদিকে আশুলিয়ার নয়ার হাট বেলতলা এলাকায় আশুলিয়া থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদসহ ৬ জনকে দলীয় কোন্দলের জের ধরে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার বিকেলে আশুলিয়ার বেলতলা এলাকায় এঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী জানায় দলীয় কোন্দলের জের ধরে আশুলিয়ার বেলতলা এলাকায় আবুল কালাম আজাদকে কুপিয়ে জখম করেন পাথালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম এর লোক সুমন আহমেদ (পন্ডি) জুয়েল রানা ওরফে রহিম বাদশা ও রাতুলসহ সন্ত্রাসীরা। পরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ সন্ত্রাসী সুমন আহমেদ (পন্ডি) আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক কবির হোসেন সরকারের অনুসারি। গত কয়েকদিন আগে পন্ডি পাথালিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতির পদ পান। এর পরেই তিনি এলাকায় সন্ত্রাসীর রাজত্ব কায়েম করেছেন। এলাকায় তিনি নানা অপকর্মে জড়িত বলেও জানান এলাকাবাসী।

এছাড়া বিকেলে সোহেল নামের আরেক গার্মেন্টস শ্রমিককে আশুলিয়ার খেজুরটেক এলাকায় সন্ত্রাসী মোয়াজ্জেম এর লোকজন কুপিয়ে আহত করেছে। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এনাম মেডিক্যালে আহতদের দেখতে গিয়ে সংসদ সদস্য ডাঃ এনামুর রহমান হামলাকারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গেফতারের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে যুবলীগের নেতাকে দেখতে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন, সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল আলাম রাজীব হাসপাতালে দেখতে আসেন।

বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহাসিনুল কাদির। তিনি বলেন, এই হামলা ঘটনার একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আশুলিয়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল আউয়াল বলেন, ওই ঘটনায় ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সাভার ও আশুলিয়ার থানায় দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Share Button

খোঁজাখুঁজি

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০