» সুন্দরবনের সুরক্ষায় আরও চারটি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে

Published: ১৬. জানু. ২০১৮ | মঙ্গলবার

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ‘আমরা সবাই মিলে সুন্দরবনকে নিরাপদে রাখবো। সুন্দরবনে কোনো জলদস্যু থাকতে পারবে না। আশির দশকে সুন্দরবনে জলদস্যুদের উৎপাত শুরু হয়। যদি ইতিহাস দেখি তবে মোঘল আমলে এই অঞ্চলে সমুদ্রে জলদস্যু ছিল। এটা প্রায় ৪০০ বছরের সমস্যা। তবে আমরা এই সমস্যা নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়েছি।’

মঙ্গলবার বিকাল পৌনে ৪টায় বরিশালে র‌্যাব-৮ কমপ্লেক্সে সুন্দরবনের তিন জলদস্যু বাহিনীর আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

র‌্যাব ডিজি বলেন, ‘সুন্দরবনের প্রায় সব বাহিনীই আত্মসমর্পণ করেছেন। তবে আরও অবশিষ্ট কয়েকজন রয়েছে। আমি আশা করি তারাও খুব দ্রুত আত্মসমর্পণ করবেন।’

সুন্দরবনের সুরক্ষায় আরও চারটি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে জানিয়ে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘সুন্দরবনের ওপর নির্ভরশীল মানুষ যেন আরও সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে এ কারণে আরও চারটি র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে কিছু লোকজন ভদ্র মুখোশ পরে ডাকাতদের পক্ষ নিয়ে কাজ করছে। জনগণের সমস্যা করছে। তাদের বিষয়ে আমাদের কাছে তথ্য দিন। আমরা কঠোর হাতে দমন করব।’

প্রসঙ্গত, ৩৮টি দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র ও ২৯৬৯ রাউন্ড বিভিন্ন গোলাবারুদসহ সুন্দরবনের তিন জলদস্যু বাহিনীর ৩৮ জন সদস্য মঙ্গলবার বরিশালে আত্মসমর্পণ করে। এ নিয়ে মোট ১৭টি জলদস্যু বাহিনী র‌্যাবের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন।

Share Button