» কর্মবিরতি চলছে চলবে

Published: ২৭. ফেব্রু. ২০১৮ | মঙ্গলবার

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে বলে স্রেফ জানিয়ে দিয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকরা।গতকাল বিকেলে নগর ভবনের সভাকক্ষে সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদের বিসিসি শাখার আহবায়ক দিপক লাল মৃধা।বিকেল ৫ টায় অনুষ্ঠেয় ঐ সংবাদ সম্মেলনে বিসিসির কর্মরত বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় মেয়র তার নির্বাচনী ওর্য়াকে নেমেছেন।একদিকে আমরা না খেয়ে আছি আর তিনি পার্সেন্টেজ নিয়ে নিজের পছন্দসই ঠিকাদারদের বিল দেয়ার পায়তারা করছেন।সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় বিসিসিতে প্রতিদিন অনেক টাকা আয় হয় ।অথচরাজস্ব আয়ের টাকায় কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন না দিয়ে মেয়র ঠিকাদারদের বিল দিচ্ছেন। অন্যদিকে বকেয়া বেতন ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকার দাবিতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা দশম দিনের মতো মঙ্গলবার কর্মবিরতী পালন করেছেন। ফলে নগর ভবনের অচলবস্থা অব্যাহত রয়েছে।
আন্দোলনকারীরা দিনভর নগর ভবনের দোতলায় মেয়র আহসান হাবিব কামালের কক্ষের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন। কিন্তু এই বিষয়টির কোন সমাধান না করেই মেয়র আহসান হাবিব কামাল নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি সভায় যোগদান করতে মঙ্গলবার ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন। ফলে চলতি সপ্তাহেও নগর ভবনের অচলাবস্থার অবসান হচ্ছেনা বলে মনে করা হচ্ছে।এদিকে সোমবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে সাংবাদিক সম্মেলন করে মেয়র কামাল বলেছেন, এ আন্দোলনের পেছনে অদৃশ্য কোনো শক্তি কাজ করছে। তিনিসহ কাউন্সিলরদের ব্যর্থ প্রমাণ করার উদ্দেশে চলমান উন্নয়ন কাজ বাঁধাগ্রস্থ করতে অদৃশ্যদের ইন্ধনে কতিপয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী আন্দোলন করে নগর ভবনকে অচল করে রেখেছে। মেয়র কামাল আন্দোলনকারীদের দ্রুত কাজে যোগদানের আহবান জানিয়ে বলেন, সবার বকেয়া বেতন আগামী জুন মাসের মধ্যে পরিশোধ করা হবে।

Share Button

খোঁজাখুঁজি

মে ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১