» সমঝোতা বৈঠকের পরও বরিশাল থেকে ঝালকাঠিতে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ

Published: ১৬. মার্চ. ২০১৮ | শুক্রবার

সমঝোতা বৈঠকের পর বরিশাল-পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলায় বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। কিন্তু বরিশাল থেকে ঝালকাঠি ও ঝালকাঠি হয়ে অন্যান্য রুটগুলোতে সরাসরি বাস চলাচল এখনো বন্ধ রয়েছে। ঝালকাঠি বাস মালিক-শ্রমিক সমিতি বরিশাল মালিক সমিতির কোন বাস রায়াপুর থেকে ঝালকাঠিতে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না।তবে তারা (ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি) বরিশাল নগরের শেষপ্রান্ত কালিজিরা ব্রীজের পর ঝালকাঠির রায়াপুর নামক স্থানে সদ্য নির্মিত বাসস্ট্যান্ড থেকে বাস চলাচল অব্যহাত রেখেছে। বরিশাল রুপাতলী বাসস্ট্যান্ডের শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম টিটু বলেন, গতকাল বৃহষ্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত বরিশাল নগরের কাশিপুরস্থ বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে ঝালকাঠি, বরিশাল, পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলার বাস মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। যে বৈঠকে বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি, পুলিশ কমিশনারসহ জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঝালকাঠি মালিক সমিতির ২ টি বাস বরিশাল থেকে পটুয়াখালী জেলায় চালাতে অনুমতি দেয়া হয়। যার মধ্যে একটি তারা (ঝালকাঠি) বরিশাল থেকে কুয়াকাটা ও অপরটি আমরা বরিশাল থেকে রণগোপালদি রুট নির্ধারণ করে দেই। পাশাপাশি সভায় বিভাগীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঝালকাঠি জেলা ও জেলা হয়ে সকল রুটে পূর্বের নিয়মে বরিশাল থেকে সরাসরি বাস চালানো নির্দেশ দেয় এবং বরিশাল-পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলায় বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার কথা বলেন। তাৎক্ষনিক বরিশাল-পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা বাস মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতারা ধর্মঘট তুলে নিয়ে বাস চলাচল স্বাভাবিক করে। কিন্তু বিভাগীয় প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মানতে রাজি না হয়ে সভাস্থল ত্যাগ করে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি। তিনি বলেন, প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী বৃহষ্পতিবার বিকেল ও আজ শুক্রবার সকালে ১০ টির মতো গাড়ি যাত্রী নিয়ে ঝালকাঠির উদ্দেশ্যে পাঠানো হলে তা ঝালকাঠি জেলার সড়ক বিভাগের শুরু রায়াপুর নামক স্থান থেকে ঘুরিয়ে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। বরিশাল-পটুয়াখালী বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন বলেন, বিষয়টি প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে। ঝালকাঠি জেলা পুলিশ সুপারকে বলা হয়েছে। তারা বিষয়টি দেখছেন।এদিকে ঝালকাঠি জেলা বাস ও মিনি বাস মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমাদের ন্যায্য হিস্যার দাবীর বিষয়গুলো নিয়ে কোন গুরুত্ব দেয়া হয়নি সভায়। বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কে আমাদের জেলার ৮ কিলোমিটার সড়ক পথ ব্যহার করে ৭ টি রুটে বাস চালনা করছে বরিশাল বাস মালিক সমিতি। সেই হিসেবে আমরা যে কয়টি রুটে যে কয়টি শেয়ার পাবো তার দাবীই আমরা করেছি। কিন্তু প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারাদের হস্তক্ষেপে বরিশাল থেকে আমাদের ২ টি বাস চলাচলের অনুমতি দেয়া হলেও রনগোপলদী যে রুটটি রয়েছে তা সম্পর্কে আমরা অবগত নই।তিনি বলেন, আমাদের ন্যায্য হিস্যার সুষ্ঠ সমাধান না হওয়া পর্যন্ত পূর্বের মতোই বরিশালের বাস ঝালকাঠিতে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না এবং ঝালকাঠির কোন বাস বরিশাল শহরের শেষপ্রান্ত কালিজিরা ব্রীজ পাড় হবে না। তবে যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘবে রুপাতলী বাসস্ট্যান্ড থেকে তিন কিলোমিটার দূরে রায়পুর থেকে ঝালকাঠি মালিক সমিতি বাস চালনা করবে। সেখান থেকে ঝালকাঠি শহর, পিরোজপুর, মঠবাড়িয়া, পাথরঘাটা, ভান্ডারিয়া ও খুলনা রুটে বাস চালনা করা হচ্ছে।

Share Button

খোঁজাখুঁজি

অক্টোবর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১