» মেঘনা নদীতে বরিশাল গামী সুন্দরবন ১০ উপর কির্তনখোলা লঞ্চের আঘতে ব্যাপক ক্ষতি

Published: ০৩. এপ্রি. ২০১৮ | মঙ্গলবার

বরিশালের হিজলায় গভীর রাতে মেঘনা নদীর মিয়ারচর নামকস্থানে বরিশালগামী যাত্রীবাহী লঞ্চ সুন্দরবন(১০) এর উপর আচড়ে পড়ে অপর বরিশাল গামী যাত্রীবাহী লঞ্চ কির্তনখোলা (২) লঞ্চটি এতে গভীর রাতে ঘুমিয়ে থাকা সুন্দরবন লঞ্চের সাধারন যাত্রীরা ভয়ে আতংকিত হয়ে দৌড়া দৌড়ি শুরু করেন। লঞ্চচি তিরে ভিড়িয়ে থাকার কারনে যাত্রী সাধারনের তেমন ক্ষতি না হলেও সুন্দরবন লঞ্চের ৫ থেকে ৬ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। সুন্দরবন লঞ্চের প্রথম শ্রেনীর মাস্টার রুহুল আমিন বলেন সুন্দরবন লঞ্চটি ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে বরিশালের উর্দেশ্যে যাত্রা করে রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে বরিশালের হিজলার মেগনা নদীতে ভাটার কবলে পড়ে মিয়ারচর নামকস্থানে নোঙ্গর করে লঞ্চটি থামিয়ে রাখা হয় জোয়ারের অপেক্ষার জন্য।রাত তিনটা দশ মিনিটের সময় ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে আসা কির্তনখোলা(২) লঞ্চটিকে সিঙ্গনাল দেয়ার পরও তারা পিছন থেকে সুন্দরবন লঞ্চের উপর সজোড়ে আঘাত করে এতে লঞ্চের পিছন সাইডে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। যা সংস্কার করতে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকার মত খরচ হতে পারে। এরপর মেঘনায় জোয়ার আসার পর সুন্দরবন লঞ্চ পুনরায় বরিশালের দিকে যাত্রী নিযে ছেড়ে আসে। সকালে ঘাটে এসে তারা কির্তনখোলা (২) লঞ্চের বিরুদ্বে বরিশাল নদী বন্দর নৌ ট্রাফিক দপ্তরে লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের করেন। এসময় সুন্দরবনের বেশ কিছু যাত্রী অভিযোগ করে বলেন থেমে থাকা লঞ্চটির উপর পিছন থেকে আঘাত করাটা ছিল ইচ্ছাকিত যেহেতু সুন্দরবন লঞ্চটি তীরে নোঙ্গর করা ছিল আর কির্তনখোলা লঞ্চটি পিছন থেকে আসতেছিল তাদের চোখে পড়ার কথা যে একটি লঞ্চ মেঘনার তীরে নোঙ্গর করা তারপরও সেই লঞ্চের উপর আঘাত করাটা আমরা যাত্রীরা ব্যাপারটা কোন দৃষ্টিতে দেখব। আর এসব অদক্ষ চালকদের কারনেই সাধারন যাত্রীরা অনেক সময় হয়ে যায় বেওয়ারিশ লাশ। তিনি নৌ পথের বেপরোয়া লঞ্চ চলাচল বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন একজন সাধারন যাত্রী হয়ে।

Share Button

খোঁজাখুঁজি

এপ্রিল ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মার্চ    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০